Categories
My text Other

মোল্লার জিহবাই আমার জিহিব্বাহ

জন্ম থেকে মোল্লার জিহ্বায় খাবার খাওয়া অভ্যস্থ মানুষ গুলো এখন আর নিজের জিহ্বায় কোন স্বাদ পায় না। যত ভাল খাদ্যই পরিবেশন করা হোক মোল্লার জিহ্বা খুঁজে।

হাদীস ভিত্তিক মাদরাসা শিক্ষা ব্যবস্থা এভাবেই আলেমদেরকেও কোরান বিমুখ করে রেখেছে। ঐ যে শুরু থেকেই অভ্যস্থ নয়। ইংরেজরা এমন এক চাবী মেরে গেছে তাদের সিলেবাজের মগজে।

Categories
Other

সম্পত্তি বেদখল হলে আপনি কি করবেন?

https://youtu.be/Sz6h-hZgW7g

জোর করে আপনাকে আপনার জমি থেকে উচ্ছেদ করে অবৈধ ভাবে সেখানে অন্য কেউ তার স্বত্ব প্রতিষ্ঠিত করার অবস্থাকে বেদখল বলে।
বেদখল হতে প্রতিকার পেতে আপনাকে প্রমান করতে হবে —-
১) আপনাকে জোর পুর্বক বেদখল করা হয়েছে
২) আপনাকে আপনার সম্মতি ছাড়া বেদখল করা হয়েছে।
৩) যথাযথ আইনগত পদ্ধতি ছাড়া বেদখল করা হয়েছে
৪) আপনি বেদখল হওয়ার ৬ মাসের মধ্যে মামলা দায়ের করেছেন।

ক) ফৌজদারী আদালতে মামলাঃ জমি দখলকে কেন্দ্র করে অস্থিতিশীল পরিস্থতির সৃষ্টির আশংকা দেখা দিলে ফৌজদারী কার্যবিধির ১৪৫ ধারা অনুযায়ী প্রতিকার চাইতে পারেন। এ ধারা অনুযায়ী প্রতিকার চাইতে হবে ১ম শ্রেনীর ম্যাজিষ্ট্রেটের আদালতে। আর এ মামলা করতে হবে বেদখল হয়ে গেলে বা বেদখল হওয়ার আশংকা দেখা দেওয়ার দুই মাসের মধ্যে। মামলা করলে ম্যাজিষ্ট্রেট প্রতিপক্ষের উপর সমন জারী করবেন। পরবর্তি সময়ে উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনবেন এবং সাক্ষ্য প্রমান শেষে সম্পত্তির দখলকার কে তা নির্ধারন করবেন। প্রয়োজনে সরজমিনে আদেশ দিতে পারবেন পুলিশকে। তাদের দেওয়া প্রতিবেদনের ভিত্তিতে দখলকার কে সে বিষয়ে রায় দিবেন।
তবে ১৪৫ ধারায় প্রতি কার চাইতে গেলে এখানে স্বত্ব বা মালিকানা দাবি করা যাবে না। এর মধ্যে শুধু প্রকৃত দখলদার নির্নয় করার জন্য প্রতিকার চাওয়া যাবে।

খ) দেওয়ানী আদালতে মামলাঃ
১৮৭৭ সনের সুনির্দিষ্ট প্রতিকার আইনের ৮,৯ ও ৪২ ধারায় জমি জমার মালিকানা নিয়ে প্রতকারের ক্ষেত্রে
নির্দিষ্ট এখতিয়ারধীন আদালতে মামলা করতে হবে।
মামলার মুল্যমান ৪ লাখ টাকার কম হলে সহকারী জজ আদালতে এবং চার লাখের বেশী হলে অসীম এখতিয়ার পর্যন্ত যুগ্ম জেলা জজ আদালতে প্রতিকার চাইতে হবে। মামলা দায়ের করতে হবে আইনজীবির মাধ্যমে।
সুনির্দিষ্ট প্রতিকার আইনের ৯ ধারা অনুযায়ী প্রতিকার চাইতে হলে মালিকানা প্রমানের দরকার নাই। শুধু জমি থেকে দখলচ্যুত হয়েছেন এটি প্রমান করলেই চলবে।

৯ ধারায় উল্লেখ আছে, যদি কোন ব্যক্তি বেদখল হন, তবে তিনি তার মাধ্যমে দাবীদার কোনও ব্যক্তি মোকদ্দমার মাধ্যমে এর দখল পুনরুদ্ধার করতে পারেন। এ ক্ষেত্রে যেসকল দিক বিবেচনা করা হয়, সে গুলি হল —–
বাদী অর্থাত যিনি প্রতিকার দাবী করেছেন, তিনি জমিটি দখল করে আসছিলেন কি না, বিবাদীপক্ষ তাকে জোরপুর্বক বেদখল করেছেন কি না? বি বাদী বেআইনীভাবে জমিতে প্রবেশ করেছেন কি না। তবে বাদীকে অবশ্যয় ৬ মাসের মধ্যে মামলা করতে হবে। অন্যথায় এ ধারায় মামলা করার অধিকার হারাতে হবে তাকে।

বাদী যদি সম্পত্তিতে নিজের স্বত্ব মালিকানা প্রমানে সামর্থ নাও হয় কেবল বেদখল হওয়ার পুর্ব পর্যন্ত দখল থাকা প্রমান করতে পারেন তবে তিনি তার পক্ষে ডিক্রি পেতে পারেন। সুনির্দিষ্ট প্রতিকার আইনের ৯ ধারা মতে প্রদত্ত ডিক্রী বা আদেশের বিরুদ্ধে আপীল বা রিভিউ করার কোন বিধান নাই। *****

তবে মহামান্য হাইকোর্টে রিভিশন করা যাবে।

Categories
Entertainment Other

Mayor abusing his powers

https://youtu.be/nm6qMqOHVPs

Live Protidiner kagoj 24 Sep 2022

Categories
Entertainment Other

Contempt of Court Order

https://youtu.be/Sz6h-hZgW7g

News durnitibarta 18 Sept 2022

The Mayors adamant activity and disobeying the court order has created adverse reactions to administration and government.

Categories
Other

মেয়র জামালপুর পৌরসভার অমানবিক আচরনঃ

জামালপুর পৌরসভার মেয়র ছানোয়ার হোসেন ছানুর অমানবিক কর্মকান্ডে গৃহ হারা এক নিরীহ পরিবার। আদালতের নোটিস পেয়েও পুলিশ আমলে নিচ্ছেনা বিষয়টি।

News Durniti barta 23/9/22

Categories
Bangla Song Other

যদি তুমি না থাক পাশে…

Categories
Entertainment Other

যদি থাকতে তুমি….

একবুক অভিমান, নিঃসঙ্গতা আর একাকীত্ব নিয়ে ধীমান অভিনেতা হুমায়ুন ফরীদি পৃথিবী থেকে বিদায় নেন। হুমায়ুন ফরীদির এই নীরব প্রস্থানের অন্যতম কারণ হিসেবে কাছের মানুষদের অনেকেই মনে করছেন সুবর্ণাহীন তার একাকীত্বকে।

২০১২ সনে ধানমন্ডির ৯/এ রোডের ৭২নং যে এপার্টমেন্টে হুমায়ুন ফরীদি মারা যান, সেটি ২০০৬ সালে কিনে উপহার দিয়েছিলেন সুবর্ণা মুস্তাফাকে। ২০০৮ সালের ৭ জুলাই তরুণ স্বামী বদরুল আনাম সৌদের বাহুলগ্না হওয়ার আগে সূবর্ণা মুস্তাফা এই এপার্টমেন্টটি হুমায়ুন ফরীদিকে ফিরিয়ে দেন। দীর্ঘ ২২ বছর সংসার জীবন কাটিয়ে বিচ্ছেদের পর সেই এপার্টমেন্টেই নিরবে- নিভৃতে একাকী কাটিয়েছেন হুমায়ুন ফরীদি।

Categories
My text Other

গারে গা গাঙেরো ক্ষ্যাপা—-

গে রে গা গাঙ্গেরো ক্ষাপা
হাপুর হুপুর ডুব পাড়িলে
এবার মজা যাবে বুঝা
কার্তিকের উলানি কালে

বাইচালা দেয় ঘড়ি ঘড়ি
ডুব পারিস কেন তাড়াতাড়ি।
প্রবল হবে কফের নাড়ি
যাতে হানি জীবনমূলে।।

কুতবি যখন কফের জ্বালায়
তাবিজ তাগা বাঁধবি গলায়।
তাতে কি রোগ হবে ভালাই
মস্তকের জল শুষ্ক হলে।।

শান্ত হ রে ও মন ভোলা।
ক্ষান্ত দে রে ঝাঁপই খেলা
লালন কয় আছে বেলা
দেখলি নারে চক্ষু মেলে।।

গে রে গা গাঙ্গেরো ক্ষাপা
হাপুর হুপুর ডুব পাড়িলে
এবার মজা বুঝা যাবে
কার্তিকের উলানি কালে

Categories
Other

Ellarum chollanu

Categories
Entertainment Other

সাঁঝের তারকা আমি পথ হারায়ে

Verified by MonsterInsights