Categories
My text

দীনি আলোচনায় কিছু প্রশ্নঃ

সালামুন আলাইকা,

মুহতারম তারেক হুমায়ুন পলাশ। বাদ আরজ দ্বীনের জরুরী এবং ফরজ বিষয়ক কিছু আপনার নিকট হতে জানার আগ্রহ, যা দ্বারা নিজেকে ঈমানদার হিসেব শুধরিয়ে নেয়ার প্রয়জোনীয়তা উপলব্ধি করছি। আশা করি উত্তরের মাধ্যমে সহযোগিতা প্রদান করবেন, যার প্রতিদান আল্লাহ দিবেন। আমার সোয়াল সমুহের জবাব ক্রমিক অনুযায়ী ধারাবাহিক ও সংক্ষিপ্ত আকারে জানালে খুশি হব। আপনার অনুমতি সাপেক্ষে আমি ১৫/২০টি জরুরী সোয়াল করব। আপনি তাতক্ষনিক বা ৫/৭ দিনের মধ্যে জবাব দিলেই আমি কৃতজ্ঞ থাকব এবং এর জাজা প্রার্থনা করব আল্লাহর দরবারে।

سلامون عليكا
محترم طارق همايون بالاش
أنا مهتم بمعرفة شيء عن واجبات الدين

1) هل يجب الإيمان بالحديث مع القرآن؟
১) কোরানের পাশাপাশি হাদীস এর ঈমান রাখা ফরজ কি না?

2) هل جميع أحاديث كيان السيء واجبة أم بعض الأحاديث الخاصة؟
২) সিয়া সত্তার সকল হাদীস ফরজ নাকি বিষেশ বিষেশ কিছু হাদীস ?

3) أي من المدارس الفكرية الأربعة تعتقد أنها الأفضل وأي مدرسة تنتمي إليها؟
৩) চারটি মাযহাবের মধ্যে কোন মাযহাব উৎকৃষ্ট বলে মনে করেন এবং আপনি কোন মাযহাবে আছেন?

4) هناك شعب كثيرة للإيمان ، وقد وصف الله تعالى في القرآن وجوب الإيمان ببعض الأمور. إبلاغ بالإشارة.
৪) ঈমানের অনেক শাখা প্রশাখা, কিন্তু কোন কয়টি বিষয়ের উপর ঈমান আনা ফরজ বলে আল্লাহ কোরআনে বর্ননা করেছেন। রেফারেন্স সহ জানাবেন।

5) هل تعتقد أن الحديث مفيد لأنه لم يتم تنفيذ جميع أحكام الشريعة في القرآن؟
৫) কোরানে শরীয়তের সব বিধান পরিপুর্ন নেই বলে হাদীস তার সহায়ক বলে কি আপনি বিশ্বাস করেন?

6) هل تؤمنون بأحاديث الصحابة في صحيح البخاري الشريف وتؤمنون بها؟

৬) সহী বুখারী শরীফে সাহাবীদের বর্নিত হাদীস গুলির প্রতি আপনার ঈমান আছে কি এবং মানেন কি?

6) هل كان أبو بكر وعمر وعثمان وعلي مؤمنين بهذه الأحاديث أم يصدقونها؟
৭) আবুবকর,উমর,উসমান ও আলী রাঃ গন এই হাদীস গুলির উপর ঈমান এনেছিলেন কি না, বা মানতেন কি না?

6) في حديث صحيح وصف لشيء ولم يرد في القرآن ، فهل يجب في هذه الحالة قبول هذا الحديث؟ مهتم برأيك.

৮) সহী হাদীসে বর্ননা রয়েছে কোন বিষয়ে কিন্তু কোরানে নেই এ ক্ষেত্রে সে হাদীসটি মানা ফরজ কি না? আপনার অভিমত জানার আগ্রহ।

9) لمن كلمات القرآن وكلمات من الحديث؟ أو كلاهما كلام الله.
৯) কোরআন কার বানী আর হাদীস কার বানী? নাকি উভয়ি আল্লাহর বানী।

10. هل تعتقد وتؤمن بأن القرآن هو أسلوب حياة كامل؟
১০) কোরান কি পুররনাঙ্গ জীবন বিধান বলে আপনি মনে করেন এবং বিশ্বাস করেন?

11. إذا كان كلاهما يعني كلام الله ، فلماذا لم يتم تسجيله في القرآن؟
১১) উভয়ে একজনের মানে আল্লাহর বানী হলে কোরানে তা কেন লিপিবদ্ধ করা হয় নি?

12. من هو مؤلف كتاب الحديث البخاري الشريف وهل هو من سكان مكة أو المدينة المنورة أو أي بلد آخر؟
১২) হাদীস গ্রন্থ বুখারী শরীফ এর রচয়িতা কে এবং তিনি কি মক্কা না মদীনার বাসিন্দা,না কি অন্য কোন দেশের?

13. كم هجريا أسلم عباس وكم هجريا أسلم ابنه ابن عباس؟
১৩) আব্বাস রাঃ কত হিজরীতে ইসলাম গ্রহন করেছিলেন এবং তাঁর পুত্র ইবনে আব্বাস কত হিজরীতে ইসলাম গ্রহন করেছিলেন।

14. كلمة الله مذكورة في القرآن “حديث” باللغة العربية. أي أن كلمة الحديث تعني الكلمات. في القرآن إذن حديث الله مكتوب ولكن راس
১৪) আল্লাহর কথাকে কোরানে আরবী ভাষায় “হাদীস ” বলে উল্লেখ করেছে। অর্থাত হাদীস শব্দের অর্থ কথা বা বানী। কোরানে তাহলে আল্লাহর হাদীস লিখা হয়েছে, কিন্তু রাসুল সাঃ এর হাদীস লিখা হয় নি, তাই এটা আলাদা করে লিখা হয়েছে। তার মানে কোরআন হল আল্লাহর হাদীস আর বুখারী তিরমিযি ইত্যাদী হল রাসুলের হাদীস।

15. راشدبين والصحابة أو التابعين في الخلفاء وجزء من الدين الحسن لم يجمعوا الحديث ، فترك عمل الرسول صلى الله عليه وسلم ناقصًا وبقي الجميع.
১৫) খোলাফায় রাশেদ্বীন এবং সাহাবীগন বা তাবেঈগন ও এত কল্যান ময় দ্বীনের অংশ হাদীস সংকলন না করায় রাসুল সাঃ এর কাজ অপুর্নাঙ্গ ফেলে সবাই চলে গেলেন অতঃপর রাসুল সাঃ এর ওফাতের ২৩০ বছর পর রাশিয়ার উজবিকস্থান হতে ইসমাইল রহঃ এসে এ কাজটি করে দ্বীনের পরিপুর্নতা এনে দিলেন, এ ক্ষেত্রে আপনি কি ইমাম বুখারী রহঃ কে তাঁদের চেয়ে উচ্চ মর্যদার অধিকারী মনে করেন?

১৬) কোরান সংকলন করলেন আবুবকর ও উমর রাঃ এর পরবর্তি খলিফা উসমান রাঃ এর সময়, তখন এত গুরুত্তপুর্ণ রাসুলের বাণী হাদীস সংকলন করার প্রয়োজন বোধ করলেন না খোলাফায় রাশেদীন বা সাহাবীগন কেন? এই গুরুত্তপুর্ণ দ্বীনের কাজটি পরিপুর্ন না করার জন্য আজ হতে তোমাদের দ্বীন কে পরিপুর্ন করে দেয়া হল এবং সকল দ্বীনের উপর বিজয় ঘোষনা করা হল। — কোরানের এ আয়াত মিথ্যে প্রমানিত হয় না?

১৭) আরবী শব্দ ” রাসুল ” বলতে কি সুনির্দিষ্ট করে হযরত মুহাম্মদ সাঃ কেই বুঝায়?

১৮) আল্লাহর একত্ববাদ ঘোষনার বাক্য কোনটি বা কি?

১৯) আল্লাহর একত্ববাদ ঘোষণার বাক্যটি কোরানে আছে কি? থাকলে রেফারেন্স প্লিজ, কোরানে না থাকলে হাদীসে থাকলে তার রেফারেন্স প্লিজ।

২০) সহীহ বুখারী শরীফের ২৬৫। মুহাম্মদ ইবনু বাশ্‌শার (রহঃ) …. মুহাম্মদ ইবনু মুনতাশির (রহঃ) তাঁর পিতা থেকে বর্ণিত, তিনি বলেনঃ আমি ‘আয়িশা (রাঃ)-এর কাছে [আবদুল্লাহ ইবনু ‘উমর (রাঃ)]-এর উক্তিটি* উল্লেখ করলাম। তিনি বললেনঃ আল্লাহ্ আবূ ‘আবদুর রহমানকে রহম করুন। আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে খুশবু লাগাতাম, তারপর তিনি তাঁর স্ত্রীদের সঙ্গে মিলিত হতেন। তারপর ভোরবেলায় এমন অবস্থায় ইহ্‌রাম বাঁধতেন যে, তাঁর দেহ থেকে খুশবু ছড়িয়ে পড়তো। — হাদীসটি আপনি মানেন কি? খুশবু লাগানোর কাজে আপনি কাকে নিযুক্ত করে থাকেন। আমি তার কাছে থেকে আপনার এতদ্ববিষয়ের আমল সম্বন্ধে আরো জানার আগ্রহ।

২১) পশুদের যিনা হয় কি? বা যেনার শাস্তি আছে কি?

২২) দূজন মুমিন যদি একে অপরের প্রতি তরবারী তুলে তবে উভয়ে জাহান্নামী। বুখারী শরীফের এ হাদীসটি আপনি সত্য বলে ঈমান এনেছেন এবং মেনে নিয়েছেন কি এটি রাসুলের বানী?

২৩) সহী বুখারী শরীফের — নং হাদীস উষ্টীর যুদ্ধ সংক্রান্ত হাদীসটি রাসুলের বানী আপনে মনে করেন কি?

২৪) হাদীসে কঠিন কবর আজাবের বিবরন ও কবরে সোয়াল জবাবের কথা উল্লেখ রয়েছে কোরান কি তার কোন বর্ননা রয়েছে, থাকলে রেফারেন্স প্লিজ।

By Ekramul hoq

I am A.K.M Ekramul hoq MA.LLB. Rtd Bank Manager & PO of Agrani Bank Ltd. I am interested writing and reading. Also innovator of history of Islam. Lives in Bangladesh, District Jamalpur.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights